মুসলিম-হিন্দু স্বামী-স্ত্রী পেলেন না লজ ভাড়া – শুধু আলাদা ধর্মের কারণে : সোশ্যাল মিড়িয়ায় তোলপাড়

আজকের খবর বিশেষ খবর

Last Updated on 9 months by admin

ধর্মে বিশ্বাসী হোক আর নাই হোক, নাম দিয়ে যায় চেনা। ছেলে মুসলমান – মেয়ে হিন্দু। ছেলের নাম তৌসিফ আর মেয়ের নাম জয়ন্তী। ছেলের পদবী হক আর মেয়ের বিশ্বাস। নিজেদের উপর বিশ্বাস রেখে তারা বিশেষ বিবাহ আইনে বিয়ে করেছিলেন। দুজনে এসেছিলেন হুগলীতে। জয়ন্তীর শরীর খারাপ হওয়ায় তাঁরা যান হুগলীর একটি লজে। দুজনের নাম পদবী দেখে সুলেখা লজ তাদের থাকতে দেয় নি। তাঁরা তাদের বিয়ের সার্টিফিকেট দেখান। তারপরও লজ কর্তৃপক্ষ রাজি হন নি ঘর ভাড়া দিতে।

সোস্যাল মিডিয়ায় ঘটনাটি তৌসিফ লেখার করার পর বিষয়টি নিয়ে হৈচৈ পড়ে যায়। অনেকে পোস্টটি শেয়ার করেন। অনেকে মতামত দেন ঘটনাটিকে ধিক্কার জানিয়ে। অনেকে বিস্ময় প্রকাশ করেন। অনেকে বলেন , উত্তর প্রদেশে এরকম হয় শুনতাম কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে এরকম হবে ভাবা যায় না।

তৌসিফ একজন চিত্রশিল্পী। নিজের ছবির বহু প্রদর্শনী করেছেন। অনেক লেখকের বইয়ের প্রচ্ছদ এঁকেছেন।  দৈনিক ব্যবহার্য জিনিস নিয়ে তাঁর কাজ কদর পেয়েছে।

সুলেখা লজের ঘটনা জানার পর বহু মানুষ তৌসিফের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তারা বলছেন, পশ্চিমবঙ্গেও কি লাভ জেহাদ কার্যকর হতে শুরু করেছে?

তৌসিফের এক বন্ধু লিখেছে, “ঘটনা হচ্ছে এরাজ্যে আগে মুসলিম নাম এবং পদবী হওয়ার কারণে বাড়িভাড়া না পাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তাই স্বভাবতই ইসলামোফোবিয়া আমাদের কাছে নতুন কিছু না এমন, …… “।

জয়ন্তীর ও তৌসিফের এক বন্ধু বলেছেন, “এসব উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশে হয় বলে জানতাম। এই রাজ্যে এমনটা হবে ভাবতেও পারি নি। আগামীদিন হয়তো আমাদের আরো ভয়ঙ্কর কিছু দেখতে হবে। সবাই মিলে এই ধর্মীয় বিভাজনের মানসিকতার বিরুদ্ধে সচেতন প্রয়াস চালাতে হবে”।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকে এই লজের লাইসেন্স বাতিল করার দাবী জানিয়েছেন।

হুগলীর প্রশাসন থেকে জানানো হয়েছে যে তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ গেলে তাঁরা উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবেন।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
No Thoughts on মুসলিম-হিন্দু স্বামী-স্ত্রী পেলেন না লজ ভাড়া – শুধু আলাদা ধর্মের কারণে : সোশ্যাল মিড়িয়ায় তোলপাড়

Leave A Comment