স্কুল শিক্ষিকার বদলির নির্দেশে উত্তাল চাঁচলের গ্রাম

আজকের খবর

Last Updated on 9 months by admin

নিজস্ব সংবাদদাতা: মাত্র দু’জন শিক্ষকে চলে একটা বিদ্যালয়। নতুন শিক্ষক শিক্ষিকা নিয়োগের কোনো খবর নেই। তার মধ্যেই বদলির নির্দেশ একজনের। শিক্ষিকার বদলি রুখতে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শিক্ষাকর্মীদের ঘরে তালা বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখালেন ছাত্রছাত্রী সহ গ্রামবাসীদের। এই বিক্ষোভের ঘটনাটি ঘটেছে চাঁচলের কানাইপুর জুনিয়র বেসিক হাইস্কুলে।

শহরাঞ্চলে, বিশেষ করে কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে সরকারি বিদ্যালয় বা সরকারপোষিত বিদ্যালয়গুলির অবস্থা খুবই খারাপ। ছাত্রছাত্রীর অভাবে উঠে যেতে বসেছে বহু বাংলা মাধ্যম বিদ্যালয়। রমরমিয়ে গজিয়ে উঠেছে ইংরাজি মাধ্যম বিদ্যালয়। সেখানে শিক্ষার মান যাই হোক না কেন, ছাত্রছাত্রীদের ভিড় সেসব বিদ্যালয়গুলিতে বাড়ছে। কিন্তু সরকারি বিদ্যালয় বা সরকারপোষিত বিদ্যালয়গুলির মান বাড়ানোর কথা কেউ ভাবছে না। এই সরকারি বিদ্যালয়গুলিতে ছাত্রছাত্রী আনার উদ্যোগও চোখে পড়ছে না। ফলে শহরাঞ্চলে শিক্ষক আছেন, কিন্তু ছাত্রছাত্রী নেই। আবার উল্টোদিকে গ্রামের বিদ্যালয়গুলিতে ছাত্রছাত্রীদের ভিড় অনেক বেশি, কিন্তু শিক্ষকশিক্ষিকা ছাত্রছাত্রীদের অনুপাতে অনেক কম। তাই সেসব জায়গায় ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষার হাল খারাপ হয়ে যাচ্ছে।

 

বেশ কয়েক দশক ধরে চাঁচল মহকুমার প্রত্যন্ত এলাকা কানাইপুর অঞ্চলে কয়েকশো ছাত্রছাত্রীদের জন্য বরাদ্দ একটি মাত্র সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কানাইপুর জুনিয়র বেসিক হাই স্কুল বর্তমানে এই এই বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৩০০। এই বিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীর ভবিষ্যৎ গড়ার কাজে নিযুক্ত আছেন মাত্র দুজন শিক্ষক।

 

কানাইপুরের বাসিন্দারা হঠাৎ জানতে পারেন দুই শিক্ষকের মধ্যে একজন শিক্ষিকা সায়নী ঘোষের বদলির অর্ডার এসে গেছে স্কুলে। আর এই ঘটনার খবর চাউর হওয়ার সাথে সাথে গ্রামবাসীরা চিন্তিত হয়ে পড়েন তাঁদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে। তাঁরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। শোরগোল পড়ে যায় গোটা এলাকা জুড়ে। গ্রামবাসীদের দাবি, দুই জন শিক্ষক দিয়ে এই বিদ্যালয়ে কোনোরকমে পঠনপাঠন এতদিন চলেছে। একজন বদলি হয়ে গেলে শুধুমাত্র আর একজন শিক্ষক দিয়ে তা সম্ভব নয়। শিক্ষক বদলির প্রতিবাদে কানাইপুর এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পড়ুয়াদের অভিভাবকরা বিদ্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শিক্ষাকর্মীদের ঘরে তালা বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। সামিল হয় ছাত্রছাত্রীরাও। স্থানীয়দের দাবি অবিলম্বে শিক্ষক বদলির নির্দেশ বাতিল করতে হবে।

 

কানাইপুর জুনিয়র বেসিক হাই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী পারভিন জানায়, “মাত্র দু’জন শিক্ষক ছিলেন আমাদের স্কুলে। কয়েকদিন আগে একজন শিক্ষিকা সায়নী ঘোষকে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ম্যাডাম বদলি হয়ে গেলে আমাদের পড়াশুনা চলবে কী করে? আমরা ম্যাডামকে যেতে দেব না। আমাদের স্কুলে আরো শিক্ষক নিয়োগ করতে হবে”।

 

এক অভিভাবক জানালেন, “মাত্র দু’জন শিক্ষক রয়েছে এই স্কুলে। তাঁদের নিয়েই কোনোরকমে চলে স্কুলের পঠন পাঠনের কাজ। এলাকায় আর কোনো বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নেই। তাই এই স্কুলের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয় এলাকার প্রত্যেক পড়ুয়াকে। আমরা জানতে পেরেছি কয়েকদিন আগে স্কুলের এক শিক্ষিকাকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে। আমাদের দাবি, নতুন শিক্ষক নিয়োগ করতে হবে। আর স্কুলের পঠনপাঠন স্বাভাবিক রাখতে এই শিক্ষিকার বদলি আটকাতে হবে”।

 

কানাইপুর জুনিয়র বেসিক হাই স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ভিক্টর কুন্ডু জানালেন, “স্কুলের ছাত্রছাত্রী অভিভাবকরা মিলে শিক্ষক অশিক্ষক কর্মীদের ঘরে তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন”। তিনি আরো বলেন, “স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, এই স্কুলের শিক্ষিকা বদলি বাতিল করতে হবে। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে”। স্কুলে চলা বিক্ষোভ শিক্ষকশিক্ষিকাদের ঘরে তালা বন্ধ করার ঘটনা জানতে পেরে স্কুলে ছুটে আসে চাঁচল থানার পুলিশ। পুলিশের আশ্বাসে তালা বন্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত হন শিক্ষক অশিক্ষক কর্মীরা।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
No Thoughts on স্কুল শিক্ষিকার বদলির নির্দেশে উত্তাল চাঁচলের গ্রাম

Leave A Comment