‘অসঙ্গতিপূর্ণ ও ক্রটিযুক্ত প্রমাণ’: টুলকিট মামলায় জামিন পেলেন পরিবেশকর্মী দিশা রবি

আজকের খবর বিশেষ খবর

Last Updated on 7 months by admin

বিশেষ সংবাদদাতা, ২৩ ফেব্রুয়ারি,২০২১ :

পরিবেশকর্মী দিশা রবি ‘টুলকিট’ মামলায় পতিয়ালা হাউস কোর্টে আজ জামিন পেলেন। অতিরিক্ত দায়রা বিচারক ধর্মেন্দ্র রানা ২০ ফেব্রুয়ারী শনিবার দিশার আইনজীবী সিদ্ধার্থ আগরওয়ালের কাছ থেকে কেন রবির জামিন মঞ্জুর করা উচিত, তার বিস্তারিত যুক্তি শুনেছিলেন। সেইসাথে সরকারের আইনজীবী, যারা এর বিরোধিতা করেছিলেন, তাদের বক্তব্যও শুনেছিলেন।

 

“রেকর্ডে অসঙ্গতিপূর্ণ ও ক্রটিযুক্ত প্রমাণের কথা বিবেচনা করে, ২২ বছর বয়সি কিশোরী – যার এর আগে একেবারেই কোনও অপরাধমূলক কাজের যোগ নেই, তার জামিনের বিধি লঙ্ঘনের কোন স্পষ্ট কারণ আমি খুঁজে পাই নি।”

                                                           বিচারক রানার জামিন আদেশ

 

২৩ ফেব্রুয়ারি,  মঙ্গলবার দুপুরে ১ লক্ষ টাকা মূল্যের ২টি বন্ডের বদলে ২২ বছরের এই পরিবেশকর্মী দিশা রবিকে জামিন দেওয়া হয়েছে। দিশার আইনজীবী আগরওয়াল এই বন্ডের টাকা কমানোর আবেদন জানান কারণ তার পরিবারের বড় কোনও আর্থিক সঙ্গতি নেই এবং তিনি বোঝানোর চেষ্টা করেন যে তিনি স্বেচ্ছামূলকভাবে বিনা পারিশ্রমিকে এই মামলাটি করছেন। তবে আদালত এই আবেদন অস্বীকার করেছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ করা যায় যে, গত ১৩ ফেব্রুয়ারি দিশাকে তাঁর বেঙ্গালুরুর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে দিল্লিতে নিয়ে আসে  দিল্লি পুলিশের সাইবার অপরাধদমন শাখা। দিশার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের অভিযোগ এনেছিল তারা। কৃষি আন্দোলনে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে কৃষকদের আন্দোলন সংক্রান্ত একটি  ‘টুলকিট’ সামাজিক-মাধ্যমে শেয়ার করেছিলেন সুইডেনের পরিবেশ কর্মী গ্রেটা থুনবার্গ। দিল্লি পুলিশ জানায়, ওই টুলকিট তৈরি করে আসলে দিশাই পাঠিয়েছিলেন গ্রেটাকে। দিল্লি পুলিশ দাবি করেছিল যে এই টুলকিটটি খালিস্তানি বক্তব্যের সাথে যুক্ত এবং “এটি ভারতের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং আঞ্চলিক যুদ্ধ চালানোর ষড়যন্ত্রের অংশ ছিল।” তাদের যুক্তি ছিল যে এবছরের ২৬ জানুয়ারি দিল্লিতে সংঘটিত হিংসাকে উস্কে দেওয়ার জন্য এই টুলকিটটি ব্যবহার করা হয়েছিল।

পুলিশের আরো দাবী যে দিশাই ভারতের কৃষক আন্দোলন নিয়ে গ্রেটাকে ওই টুলকিট শেয়ার করতে অনুরোধ করেন। পুলিশ যুক্তি দেখানোর চেষ্টা করে যে দিশা এবং তার সহযোগী নিকিতা জ্যাকব এবং শান্তনু মুকুল খালিস্তানপন্থীদের সাথে যোগাযোগ করেছিল এবং তাদের সাথে এই টুলকিট ভাগ করে নিয়েছিল। তাদের অভিযোগ, ওই ‘টুলকিট’ বানানোর জন্য কানাডা ভিত্তিক সংস্থা  খলিস্তানপন্থী সংগঠন পোয়েটিক জাস্টিস ফাউন্ডেশনের সঙ্গেও হাত মিলিয়েছিলেন দিশা। সাইবার অপরাধ দমন শাখার যুক্তি ছিল, কৃষক আন্দোলনকে সমর্থনের নামে দিশা যা করেছেন, তা দেশদ্রোহ।  তাকে পাঁচ দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছিল। তারপর তাকে বিচার বিভাগের হেফাজতে প্রেরণ করা হয়েছিল এবং পরে তাকে এক দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে প্রেরণ করা হয়েছিল। এই একই মামলায় অভিযুক্ত সমাজকর্মী নিকিতা জেকব ও শান্তনু মুলুক আপাতত শর্তসাপেক্ষ জামিনের আওতায় রয়েছেন।

 

যাইহোক, বিচারকের প্রশ্নে দিশার আইনজীবী যুক্তি দেখিয়েছেন, পোয়েটিক জাস্টিস ফাউন্ডেশন কোনও নিষিদ্ধ সংগঠন নয়। দিল্লি পুলিশ এটিকে আলাদা নিষিদ্ধ সংগঠন – শিখস ফর জাস্টিস – এর সাথে গুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছিল, কিন্তু এই সমর্থনের কোনও প্রমাণ তারা দিতে পারে নি।

 

আইনজীবী আগরওয়াল আরও যুক্তি দিয়েছেন যে দিশাকে পাঁচ দিন হেফাজতে রাখার পরেও পুলিশ তথ্য প্রমাণের জন্য একবারও তাকে বেঙ্গালুরুতে নেয়নি। তিনি এই বিষয়টির উপরে জোর দিয়েছিলেন যে, সরকারের মতামত থেকে ভিন্ন মতামত থাকা কেবল রাষ্ট্রদ্রোহের কারণ হতে পারে না। দিশা রবির পক্ষে বক্তব্য রেখে তিনি বলেছেন:

“পরিবেশ ও কৃষিক্ষেত্রের সুরক্ষার জন্য কথা বলা যদি রাষ্ট্রদ্রোহ হয় তবে আমাকেও কারাগারে রাখুন।”

 

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
Tagged
No Thoughts on ‘অসঙ্গতিপূর্ণ ও ক্রটিযুক্ত প্রমাণ’: টুলকিট মামলায় জামিন পেলেন পরিবেশকর্মী দিশা রবি

Leave A Comment