আন্তর্জাতিক গৃহশ্রমিক দিবসে অধিকারের দাবিতে দেশজুড়ে গৃহশ্রমিকদের আন্দোলন

আজকের খবর গণ-আন্দোলন বিশেষ খবর শ্রমিক-আন্দোলন

Last Updated on 3 months by admin

বিশেষ সংবাদদাতা, ১৬ জুন, ২০২১ :

আজ ১৬ই জুন। আন্তর্জাতিক গৃহশ্রমিক দিবস। না, ১লা মে শ্রমিকদের দিন বা ৮ই মার্চ, আন্তর্জাতিক নারী দিবসের মতো ঐতিহাসিক লড়াই আন্দোলনের দিন এই দিন টি ঠিক নয়। তবে নিঃসন্দেহে গৃহশ্রমিকদের অধিকার আর মর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য আওয়াজ তোলার দিন। ২০১১ সালে, আন্তর্জাতিক শ্রম সংগঠন (ILO) তার ১৮৯ তম কনভেনশনে এই ১৬ই জুন দিনটিকে আন্তর্জাতিক গৃহশ্রমিকদের দিন হিসেবে ঘোষণা করে। কারণ ১৮৯তম কনভেনশনে আলোচনার বিষয় হিসেবে উঠে এসেছিল সারা দুনিয়া জুড়ে গৃহশ্রমের কাজে নিযুক্ত শ্রমিকদের সংখ্যা বৃদ্ধি আর তাঁদের দুর্দশার কথা। এই কনভেনশনেই গৃহশ্রমের কাজে নিযুক্তদের শ্রমিকের স্বীকৃতি আর শ্রমিকের অধিকার দেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

আজ ১০ বছর অতিক্রান্ত। ২০২১ সাল। কিন্তু আমাদের দেশ ভারতে যে কয়েক কোটি মানুষ, প্রধানত মেয়েরা এই কাজ করে রুজি রোজগার করেন, তাঁদের জন্য আজো কোন নির্দিষ্ট আইনি সুরক্ষা নেই। হ্যাঁ, অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের সামাজিক সুরক্ষা আইনের মধ্যে যে বিভিন্ন অসংগঠিত পেশার তালিকা আছে, তাতে গৃহসহায়িকারাও সম্প্রতি অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। তবে এমনি নড়বড়ে এই সুরক্ষা আইন যে ন্যূনতম সুবিধা পাওয়া বেশ কঠিন। যেমন আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গে যে অসংগঠিত শ্রমিকদের জন্য নির্দিষ্ট সাসফাউ (SASPFUW) প্রকল্প ছিল তা তৃণমূল সরকারের আমলে বদলে হল সামাজিক সুরক্ষা যোজনা (SSY)। এবারের ভোটের আগে তা আবার বদলে হল বিনামূল্যে এস এস ওয়াই (BMSSY) প্রকল্প। সুযোগ সুবিধা নিয়মকানুনও বদলে যায়। গৃহশ্রমিকরা বা তাঁদের সংগঠন কি সরকারি দপ্তরগুলোও নিয়মকানুন ভালো জানতে পারেন না। খোঁজ নিলে জানা যায় অনলাইন পদ্ধতিতে এন্ট্রি করার জন্যও কোন নির্দিষ্ট সরকারি পদ পর্যন্ত নেই। এছাড়া অনেক দাবিদাওয়া করা সত্ত্বেও আমাদের রাজ্যে এখনো ন্যূনতম মজুরি আইনের অন্তর্ভূক্ত নয় গৃহশ্রমিকরা। ভারত সরকারের আজ পর্যন্ত অনেক টালবাহানা সত্ত্বেও গৃহশ্রমিকদের জন্য কোন নির্দিষ্ট জাতীয় নীতি নেই। এদিকে নরেন্দ্র মোদীর বিজেপি সরকার আবার শ্রম আইনগুলো বদলে শ্রম কোড এনেছে। অর্থাৎ যতটুকু যা অধিকার ছিল দেশে কিছু ক্ষেত্রের শ্রমিকদের, তাও কেড়ে নেওয়ার ব্যবস্থা।

গৃহশ্রমিকদের অধিকার আর মর্যাদার জন্য সংগ্রাম চলছে। সংগ্রামী গৃহশ্রমিক ইউনিয়ন এই করোনা অতিমারীর পরিস্থিতিতে গৃহশ্রমিকদের দাবিদাওয়া নিয়ে কোলকাতা, হুগলী, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার   বিভিন্ন জায়গায় পোস্টার হাতে প্রতিবাদ করে চলেছে। আজকের দিনটিকে সামনে রেখে সংগ্রামী গৃহশ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যরা বেলঘরিয়া স্টেশন, যাদবপুর স্টেশন, দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিধ্যাধরপুর স্টেশন, কলকাতা স্টেশন সহ, শ্যামবাজার, সল্টলেক এলাকায় এছাড়া হুগলী জেলার অন্তর্গত হিন্দমোটর এলাকায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে বিগত ৭-১০ দিনে। মূল দাবী- ১) সমস্ত গৃহশ্রমিককে বিনামূল্যে টীকা দিতে হবে, ২) সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মত সমস্ত ধরণের পরিযায়ী গৃহশ্রমিকদের উপযুক্ত রেশন দিতে হবে এবং ৩) লকডাউনের কারণে যে সমস্ত গৃহশ্রমিকদের কাজ গেল বা আর্থিক ক্ষতি হল তাঁর ক্ষতিপূরণ কেন্দ্র সরকারকে দিতে হবে। এছাড়াও ছিল অন্যান্য দাবী। যেমন রেলে যাতায়াত করা গৃহশ্রমিকদের পুলিশি হেনস্থা করা চলবে না। দেশজোড়া মূল্যবৃদ্ধিতে গৃহশ্রমিকরা তাঁদের মজুরি বৃদ্ধির দাবী জানিয়েছে। গৃহশ্রমিকদের পেশন আইনের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। গৃহশ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি আইনের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। গৃহশ্রমিকদের শ্রমিক হিসেবে আইনি সুরক্ষার জন্য দ্রুত জাতীয় নীতি কেন্দ্র সরকারের শ্রমমন্ত্রীকে ঘোষণা করতে হবে।

পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও আজকের দিন টিকে কেন্দ্র করে সংগ্রামী ঘরেলু কামগার ইউনিয়নের সাথীরা দিল্লী ও ব্যাঙ্গালোরেও ভিনরাজ্যে পরিযায়ী গৃহশ্রমিকদের দাবিদাওয়া নিয়ে আজ মিটিং, ধরনা কর্মসুচী পালন করেছে। সারা দেশে গৃহশ্রমিকরা আজ তাঁদের অধিকার রক্ষার লড়াইয়ে পথে নেমেছেন – সংগঠিত হচ্ছেন শ্রমিকের স্বীকৃতি আর শ্রমিকের অধিকার আদায়ের জন্য।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
Tagged
No Thoughts on আন্তর্জাতিক গৃহশ্রমিক দিবসে অধিকারের দাবিতে দেশজুড়ে গৃহশ্রমিকদের আন্দোলন

Leave A Comment