কৃষি আইন নিয়ে তৈরি কমিটির পুনর্গঠনের জন্য দেশের সর্বোচ্চ আদালতে হল মামলা

আজকের খবর কৃষক আন্দোলন

Last Updated on 8 months by admin

বিশেষ সংবাদদাতা, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১: এবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করা হল ভূপিন্দর সিং মান কোর্ট নির্ধারিত বিশেষজ্ঞ কমিটি থেকে অব্যাহতি নেওয়ার পর অবশিষ্ট তিন জনের কমিটিকে ভেঙে নতুন করে কমিটি গঠন করা হোক, যারা কৃষি আইন নিয়ে বিক্ষুব্ধ কৃষকদের সাথে আলাপ আলোচনা চালাবে ও সেই বিষয়ে রিপোর্ট পেশ করবে। আইনজীবী এ কে সিং এর মাধ্যমে এই আবেদন জানিয়ে মামলা করেছে ভারতীয় কিষান ইউনিয়ন লোকশক্তি(BKUL) নামে একটি সংগঠন। তাদের স্পষ্ট বক্তব্য হল ১২ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্ট কৃষি আইন বিষয়ে যে কমিটি গঠন করে দিয়েছিল, সেই কমিটি থেকে ভূপিন্দর সিং মান অব্যাহতি নেওয়ার পর যে তিনজন ওই কমিটিতে অবশিষ্ট রয়ে গিয়েছেন, তাঁরা সকলেই অতীতে কখনো না কখনো প্রস্তাবিত নতুন কৃষি আইনের পক্ষে লিখিত আকারে মতামত দিয়েছেন। ওই তিনজন হলেন ড. প্রমোদ কুমার জোশী, অশোক গুলাটি ও অনিল ঘনওয়াত।

BKUL তাদের আবেদনে সর্বোচ্চ ন্যায়ালয়কে মনে করিয়ে দিয়েছে যে ভূপিন্দর সিং মান তাঁর একটি লিখিত বক্তব্যে বলেছিলেন, “নতুন কৃষি আইন প্রত্যাহৃত হওয়া উচিত নয়“।

এছাড়াও BKUL তাদের আবেদনে উল্লেখ করেছে যে গত ১৫ই ডিসেম্বর তারিখে ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসে যুগ্মভাবে ড. প্রমোদ কুমার জোশী একটি লেখা প্রকাশ করেছিলেন, যাতে বলা ছিল, “প্রস্তাবিত কৃষি আইনের সামান্যতম লঘুকরণও কৃষিক্ষেত্রে পৃথিবীজোড়া ভবিষ্যৎ সুযোগ সুবিধা থেকে ভারতীয় কৃষিকে বঞ্চিত করবে।” লেখাটিতে প্রস্তাবিত নয়া কৃষি আইনকে সর্বতোভাবে সমর্থন করে বলা হয়েছিল, “সরকারের তরফ থেকে সঠিকভাবে তথ্য সরবরাহ ও সমন্বয়ের অভাবে কৃষকরা ভুল তথ্যের দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছেন“।

অশোক গুলাটির কথা বলতে গিয়ে BKUL তাদের আবেদনে উল্লেখ করে যে তিনি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত একটি লেখায় বলেছিলেন যে প্রস্তাবিত কৃষি আইন সঠিক দিশাতেই রয়েছে। এছাড়াও “বিরোধীরা ভুল পথে চালিত হচ্ছে” আর এই কৃষি আইন আসলে “ভারতীয় কৃষিকে বিশ্বের বাজারে আরও বেশি করে প্রতিযোগী করে তুলবে ও কৃষক তথা উপভোক্তাদের উপকার করবে” বলেও তিনি মন্তব্য করেছিলেন।

এরপর BKUL তাদের আবেদনে অনিল ঘনওয়াতের বিষয়ে উল্লেখ করতে গিয়ে আদালতকে মনে করিয়ে দেয় যে, হিন্দু বিজনেস লাইন পত্রিকায় প্রকাশিত একটি লেখায় অনিল ঘনওয়াত লিখেছিলেন যে এই কৃষি আইনকে কোনোভাবেই প্রত্যাহার করা উচিত নয়। তাঁর মতে এই কৃষি আইন কৃষকদের সামনে নতুন নতুন সুযোগ এনে দিয়েছে, আর তাই কিছু পরিবর্তন ও সংশোধনসহ এই আইনের প্রণয়ন প্রয়োজন।

এই কারণগুলোর জন্যই BKUL আদালতের কাছে আবেদন করে যাতে এই তিনজনের কমিটিকে ভেঙে নতুন করে এই বিষয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয় যেখানে থাকবেন সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ও কৃষক ইউনিয়নের সদস্যরা।

এছাড়াও BKUL তাদের আবেদনে আগামী প্রজাতন্ত্র দিবসে কৃষকরা যে ট্র্যাক্টর র‍্যালির ডাক দিয়েছেন, তা বন্ধ করার জন্য সুপ্রিম কোর্টে দিল্লি পুলিশের আবেদনকে খারিজ করার আর্জি জানিয়েছে।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
No Thoughts on কৃষি আইন নিয়ে তৈরি কমিটির পুনর্গঠনের জন্য দেশের সর্বোচ্চ আদালতে হল মামলা

Leave A Comment