অলৌকিক,আধ্যাত্মিক,আধুনিকঃ ‘স্মার্ট সিটি’ বেনারসে সংকটে হিন্দুদেরই জীবন

আজকের খবর বিশেষ খবর

Last Updated on 8 months by admin

বেনারস ঃ অলৌকিক, আধ্যাত্মিক,আধুনিক  – এই ট্যাগ লাইন কে কেন্দ্র করে বেনারসকে স্মার্ট সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে নেমেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। রোমের ভ্যাটিকানের আদলে বিশ্বনাথ মন্দির কে কেন্দ্র করে একটি ট্যুরিজম হাব গড়ে তোলাই হল এই স্মার্ট সিটি প্রজেক্ট এর মূল লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে বেনারসের গলি রাস্তা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ঘাট সমস্ত কিছুই বদলে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে বেনারস নগর নিগম। প্রায় ২৫০০ বছরের পুরানো এই শহরকে মানুষ একনামে কাশি হিসেবেই চেনে। সারাবছর অজস্র পুনার্থীদের ভিড়, দশাশ্বমেধ ঘাটে সন্ধ্যারতি, গোলকধাঁধার মতন গলিঘুঁজি , হরিশ্চন্দ্র আর মনিকর্ণিকা ঘাটের শবদাহ – কাশি বেনারস বলতেই যে ইতিহাস ছোঁয়া দৃশ্য মনে আসে তা দীর্ঘমেয়াদি ভাবে উন্নত করার  কথা বলা হয়েছে প্রজেক্টে। আবর্জনা আর নোংরার স্তুপ সরিয়ে ঝাঁ চকচকে হবে বেনারসের পথ ঘাট। নানা নতুন পরিকাঠামোতে সেজে উঠবে গঙ্গার ঘাটগুলো।

কিন্তু কাশীর নাগরিক জীবনে এই বদলকে কেন্দ্র করে নানা অসন্তোষ দানা বেধেছে। বেনারসের ঘাটে বা গলিতে বিভিন্ন ছোট ব্যবসায়ী দোকানদারদের অনেকেই এই বদল নিয়ে শঙ্কিত। ইতিমধ্যে উচ্ছেদের মুখে পড়েছেন বহু দোকানদার। বাঙালি টোলার  কাছে নান্দেই টি কফি শপের মালিক বিশ্বনাথের ভক্ত অমিত নান্দেই জানালেন “ শুনছি নতুন প্রজেক্টে আমাদের উচ্ছেদ করে দেওয়া হবে। তারপর নতুন টেন্ডার ডেকে বড় বড় দেশি বিদেশি কোম্পানিদের দোকান খোলার বরাত দেওয়া হবে। তিনপুরুষের ব্যাপার থেকে উচ্ছেদ হলে ঘোরতর সংকটে পড়ব আমরা“। দশাশ্বমেধ ঘাটের সামনে উপহারের দোকানের মালিক নীতিন জীর মুখেও শোনা গেল একই খেদ। তিনি জানালেন “ হিন্দু ট্যুরিজম হাব হবে ভালো কথা । কিন্তু আমরাও তো হিন্দু। হিন্দুদের ব্যবসা বন্ধ করে মন্দির চত্ত্বর বড় কোম্পানিদের হাতে তুলে দিচ্ছে যোগী সরকার।“ স্থানীয়দের আরোও অভিযোগ উচ্ছেদের সাথে সাথে বেড়েছে পুলিশের জোর জুলুম। রাত দশটার পরে কোন দোকান খোলা রাখতে দিচ্ছে না পুলিশ। দুপুর বা রাতে ঘাটের ধারে মাঝেমধ্যেই খানাতল্লাসি চালাচ্ছে পুলিশ। অপ্রয়োজনীয় জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়তে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। স্থানীয় কলেজ ছাত্রী পল্লবী জানালেন “ঘাট চত্ত্বরে আমরা ছোট থেকেই আসি। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে মাঝেমধ্যেই অচেনা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের সামনে পড়ছি। পুলিশেরা এমন অসন্মানজনক ব্যবহার করছে যেন আমরা অনুপ্রবেশকারী” সবমিলিয়ে নিজভূমে পরবাসী হওয়ার এই অনুভূতি জাঁকিয়ে বসেছে বেনারসের স্থানীয়দের মধ্যে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্বাচনী কেন্দ্র হিসেবে বেনারসের আলাদা রাজনৈতিক  গুরুত্ব আগে থেকেই ছিল। অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের কাজ শুরু হওয়ার পর বিজেপির রাজনীতির ক্ষেত্র হিসেবে বেনারসের গুরুত্ব আরোও অনেক বেড়ে গিয়েছে। হিন্দুত্বের সাথে স্মার্ট সিটির ধারণাকে মিলিয়ে আধুনিক-অলৌকিক-আধ্যাত্মিক  বেনারসের পুনর্গঠন যোগী সরকারের সামনে তাই অতি প্রয়োজনীয় প্রকল্প। কিন্তু এই প্রকল্পের মাঝে পড়ে বেনারসের নাগরিকদের জীবনের সংকট কোন দিকে গড়াবে সেটা সহজেই অনুমান করা করা যাচ্ছে।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
No Thoughts on অলৌকিক,আধ্যাত্মিক,আধুনিকঃ ‘স্মার্ট সিটি’ বেনারসে সংকটে হিন্দুদেরই জীবন

Leave A Comment