সোশ্যাল মিডিয়ায় কুৎসা – আত্মঘাতী কিশোরী

আজকের খবর বিশেষ খবর

Last Updated on 8 months by admin

নিজস্ব সংবাদদাতা: গত ১৩ই জানুয়ারি দুপুর বেলায়, চারু মার্কেটের কাছে রেললাইন সংলগ্ন বস্তিতে এক বছর ১৬ এর কিশোরী আত্মহত্যা করে। নাম গীতা পাল, বাবা পেশায় দিনমজুর, মা অন্যের বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন। বেশ কষ্টের মধ্যেই মেয়েকে পড়াশুনো শিখিয়েছিলেন। মেয়েটি ক্লাস ইলেভেনে পড়ত।

বাড়ির লোকের অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গিয়েছে, গীতার এক বান্ধবীর অন্য বস্তিতে থাকা এক যুবকের সাথে একটি প্রেমের সম্পর্কে গীতার নাম জড়িয়ে পড়ে। এতে গীতার নামে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে কিছু অপমানজনক ও কুরুচিকর বক্তব্য লেখে ওই যুবক। তাতে বাড়ির লোকজন গীতাকে বকাবকি করায় অভিমানে আত্মঘাতী হয় সে। গীতার এক দাদা আছে, সেও ছাত্র। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় খেটে খাওয়া এই পরিবারটি খুবই ভেঙে পড়েছে। চারু মার্কেট থানায় যুবকের নামে অভিযোগ দায়ের করেছে মৃতার পরিবার। পুলিশ এখনও পর্যন্ত সক্রিয় সদর্থক কোন ভূমিকা রাখেনি। বস্তিতে লকডাউন থেকে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক উদ্যোগ গড়ে তোলা যাদবপুর ইউনিভার্সিটির এক ছাত্রী ঝিলম খেদের সাথেই জানান, “মেয়েটি খুবই উজ্জ্বল ছিল। কিছুদিন আগেও যদি এই সমস্যাটি জানাতো গীতা, হয়তো এই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ঘটত না“।

এই সমাজে গীতার ঘটনাটি বিচ্ছিন্ন কোন ঘটনা নয়। আজকের সময়ে ফেসবুক টুইটারের মত সামাজিক গণমাধ্যমগুলি মানুষের বাস্তব সামাজিক জীবনে গভীর প্রভাব ফেলে। অনেক সময় এই প্রভাব এতটাই বেশী হয় যা স্বাভাবিক জীবনযাত্রাকে বিচলিত করে দিতে পারে। কমবয়েসী ছেলেমেয়েদের একটা বড় অংশ ফেসবুকের দুনিয়া দ্বারা পরিচালিত, যেখানে ব্যক্তি জীবনের বহু বিষয় সামনে চলে আসায় এবং সমাজ মাধ্যমে তার তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় বা সোশ্যাল জাস্টিসের ধাক্কায় তারা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। গীতার আত্মহত্যা এরকমই ঘটনার ফলশ্রুতি।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
No Thoughts on সোশ্যাল মিডিয়ায় কুৎসা – আত্মঘাতী কিশোরী

Leave A Comment