কৃষি আইন নিয়ে কেন্দ্রকে সুপ্রিম কোর্টের তীব্র ভর্ৎসনা

আজকের খবর কৃষক আন্দোলন বিশেষ খবর

Last Updated on 8 months by admin

কৃষি আইন নিয়ে কেন্দ্রের পদক্ষেপে হতাশ সুপ্রিম কোর্ট

বিশেষ সংবাদদাতা, ১১ জানুয়ারি :

দেশের শীর্ষ আদালত “কৃষি আইন নিয়ে প্রতিবাদী কৃষকদের প্রতি সরকারের আচরণে অত্যন্ত হতাশ”। নয়া কৃষি আইনের ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টে বড়সড় ধাক্কা খেল কেন্দ্র। সোমবার নয়া কৃষি আইনের বিষয়ে শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের তীব্র ভর্ৎসনার মুখে পড়ল কেন্দ্র। সুপ্রিম কোর্ট আন্দোলনরত কৃষক এবং সরকারের মধ্যে অচলাবস্থা নিয়ে কিছু তীক্ষ্ণ পর্যবেক্ষণ রেখেছে। নয়া কৃষি আইন কৃষিক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় প্রতিবাদের জন্ম দিয়েছে। এরই মধ্যে আট দফা আলোচনার হয়ে গেছে। জট কাটে নি। দিল্লির উপকণ্ঠে বিক্ষোভরত লক্ষ লক্ষ কৃষক প্রজাতন্ত্র দিবসে রাজধানী দিল্লি সহ অন্যান্য অংশে ট্রাক্টর নিয়ে “কিসান প্যারেড”-এর মাধ্যমে তাদের আন্দোলনকে আরও তীব্র করার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে বিক্ষোভ শুরুর পর গত দু’মাসে অনেক কৃষক মারা গেছেন। কৃষকরা নিশর্তে নয়া কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে আসছেন।

শীর্ষ আদালত আজ কেন্দ্র সরকারকে বলেছেন, “ধৈর্য নিয়ে আমাদের বক্তৃতা দেবেন না … দীর্ঘ সময় দেওয়া হয়েছে”। “আপনারা সমস্যা নাকি সমাধানের অংশ?” শুনানি চলাকালীন প্রধান বিচারপতি এস এ ববদে সরকারকে প্রশ্ন করেন। কৃষকদের বিদ্রোহ মেটাতে  কেন্দ্রের সদিচ্ছার অভাব, আইন প্রণয়নে একরোখা মনোভাব – এমন একাধিক মন্তব্য করলেন প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের বেঞ্চ। দেশে কৃষক আন্দোলন ঘিরে পরিস্থিতি দিন দিন আরও ঘোরালো হয়েছে। দেশের শীর্ষ আদালত এদিন কেন্দ্রকে এখনই এই আইন কার্যকর না করার পরামর্শ দিয়েছে। পাশাপাশি আদালত জানিয়েছে, কেন্দ্র এই পরামর্শ না শুনলে তারাই এই আইনের উপর স্থগিতাদেশ দেবে। গত সেপ্টেম্বরে বাদল অধিবেশনে কেন্দ্রীয় সরকার তিনটি কৃষি আইন পাশ করায়। কৃষক সংগঠন এবং বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি অভিযোগ তোলেন যে এই নয়া কৃষি আইন কৃষক তথা সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে যাচ্ছে। তারপর থেকে গত দু’মাস ধরে আন্দোলন তীব্র হয়েছে।

নয়া কৃষি আইন নিয়ে মামলা হয় সুপ্রিম কোর্টে। এদিন সেই মামলার শুনানি ছিল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের ডিভিশন বেঞ্চে। শুনানি চলাকালীন বিচারপতি কেন্দ্রের আইনজীবীর কাছে জানতে চান, নতুন তিনটি কৃষি আইন কি স্থগিত রাখা যেতে পারে? পাশাপাশি তিনি বলেন, “আপনারা আইন স্থগিত রাখুন, নয়তো আমরা স্থগিতাদেশ জারি করব। এই বিষয়ে এত অহংবোধ আসছে কী করে?” আদালত বলে, “পরিস্থিতি দিন দিন খারাপ হচ্ছে। কৃষক মারা যাচ্ছেন। কৃষক আত্মহত্যা করছেন। এই প্রবল ঠান্ডার মধ্যেও তাঁরা রাস্তায় বসে রয়েছেন। খারাপ কিছু ঘটলে তার দায় কে নেবে? পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে। আমরা কোনও মৃত্যু বা অন্য কোনও ক্ষতি দেখতে চাই না”। যদিও সরকার পক্ষের আইনজীবী কে.কে. বেণুগোপাল বলেন যে মাত্র ৩-৪ টি রাজ্যের কৃষকরা প্রতিবাদ করছেন। এখানে বৃহত্তর কৃষক সমাজের অংশগ্রহণ নেই। দক্ষিণ ভারত থেকে কোনও কৃষক এই আন্দোলনে অংশ নেননি। কিন্তু কেন্দ্রের সেসব কথায় কর্ণপাত করেন নি দেশের শীর্ষ আদালত। বরং কেন্দ্রকে স্পষ্ট ভাষায় জানানো হয় যে যদি কেন্দ্র সরকার সমস্যা সমাধানে এগিয়ে না আসে তাহলে আদালতই সমস্যা সমাধানে  হস্তক্ষেপ করবে।

আন্দোলনরত কৃষকরা এখনও কেন্দ্রের পদক্ষেপের ব্যাপারে সন্দিহান। তাঁরা স্পষ্টতই বলছেন, ‘কানুন ওয়াপিস তো হাম ঘর ওয়াপিস’ (আইন ফিরিয়ে নিলেই আমরা বাড়ি ফিরব)।

Please follow and like us:
error16
fb-share-icon0
Tweet 20
fb-share-icon20
No Thoughts on কৃষি আইন নিয়ে কেন্দ্রকে সুপ্রিম কোর্টের তীব্র ভর্ৎসনা

Leave A Comment